আজ মঙ্গলবার, ১৯শ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
আজ মঙ্গলবার, ১৯শ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

২২-২৩ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হবে

২২ থেকে ২৩ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) মুজিববর্ষ উপলক্ষে রাঙামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু অ্যাডভেঞ্চার উৎসব’ উদ্বোধনকালে তিনি এ তথ‌্য জানান।

বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের জন্য চলমান প্রকল্পগুলো ক্ষণস্থায়ী, এ কথা জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কুতুপালং ক‌্যাম্পে পাহাড়ধস হয়েছিল। তখন অনেক মানুষ মারা গিয়েছিল। আমরা আশঙ্কা করছি, সামনের মৌসুমগুলোতে এমন দুর্ঘটনা আরও ঘটতে পারে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ২২ থেকে ২৩ হাজার পরিবারকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা অমানবিক নই যে, রোহিঙ্গাদের বিপদে ফেলব। অন্য কেউ তো তাদের নিতে আসেনি, আমরাই তাদের আশ্রয় দিয়েছি। ভাসানচরে কাজ করার বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলের ভালো সাড়া পাচ্ছি।’

‘কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গাদের কাজ করার সুযোগ ছিল না। মিয়ানমারে তারা মাছ ধরা, কৃষিকাজসহ যে ধরনের কাজ করত, সে ধরনের কাজ তারা ভাসানচরে করতে পারবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সাড়ে তিন বছরে একজন রোহিঙ্গাও মিয়ানমারে ফেরত যায়নি। আমরা আশাবাদী, তারা যাবে। তারা না গেলে আমাদের বিপদ। অনেক দিন ধরে এত মানুষ থাকলে নানারকম ষড়যন্ত্র হবে। এদের মধ্যে যদি সন্ত্রাসী তৈরি হয়, আমাদের জন্যও ক্ষতিকর, মিয়ানমারের জন্যও ক্ষতিকর।’

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদারসহ অনেকে।